বছরের অন্যতম বড় অনলাইন টেক ফেস্ট Texhibition 2021

  • Post author:

IEEE YESIST12 এর প্রিলিমিনারী রাউন্ড হিসাবে RoboAdda ও বিজ্ঞানের জন্য ভালোবাসা আয়োজন করতে যাচ্ছে Texhibition নামে একটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিভিত্তিক অনলাইন প্রজেক্ট প্রদর্শনী প্রতিযোগিতা। এই প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের জন্য থাকছে বাংলাদেশ হাই টেক পার্ক অথিউরিটির থেকে ১ লক্ষ টাকার প্রাইজমানি। আর সরাসরি IEEE YESIST12 গ্লোবাল ফাইনালে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ, যেখানে ৩০টির বেশী দেশ থেকে প্রতিযোগীরা অংশগ্রহন করবে।  এই আয়োজনে প্রতিযোগীরা বয়সভিত্তিক দুটো ক্যাটাগরিতে অংশ নিতে পারবে।  ১। জুনিয়র আইন্সটাইনঃ এই ক্যাটাগরিতে ১২-১৭ বছর বয়সীরা (সাধারনত স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা) অংশ নিতে পারবে।  ২। ইনোভেশন চ্যালেঞ্জঃ এই ক্যাটাগরিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ অন্যান্যরা অংশ নিতে পারবে। উল্লেখ্য, প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে কোনো রেজিস্ট্রেশন ফির প্রয়োজন নেই। এছাড়া প্রতিযোগীদের জন্য মাইক্রোসফট ক্লাউড স্কিল ট্রেনিং প্রোগ্রাম, প্রিমিমাম কোর্স সহ অনেক  প্রতিযোগিরা তাদের প্রজেক্টের আইডিয়া জমা দিয়ে ১৫ আগস্টের মধ্যে ফ্রি রেজিস্ট্রেশন করতে পারবে। এরপর ২০ আগস্টের মধ্যে প্রজেক্টের ভিডিও জমা দিতে হবে। তারপর অভিজ্ঞ মেন্টররা ৫ দিন ব্যাপী একটি ভার্চুয়াল বুটক্যাম্পের মাধ্যমে প্রতিযোগীদের প্রজেক্ট আরো উন্নত করতে সাহায্য করবেন। এরপর প্রতিযোগীরা জুরি বোর্ডের সামনে তাদের প্রজেক্ট উপস্থাপন করবেন এবং ৩০ আগস্ট সমাপনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিজয়ীদের নাম ঘোষনা করা হবে। যেখানে দেশের খ্যাতনামা প্রযুক্তি সংশ্লিষ্ঠ ব্যাক্তিরা উপস্থিত থাকবেন। রোবোআড্ডা বাংলাদেশের প্রযুক্তিপ্রেমীদের অন্যতম বড় কমিউনিটি প্লাটফর্ম, যেখানে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ১০ হাজার নিয়মিত শিক্ষার্থী ও কর্মজীবীরা রোবোটিক্স, প্রোগ্রামিং, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, থ্রিডি ডিজাইন, সার্কিট ডিজাইন ইত্যাদি শিখছে। তারা আগ্রহীদের জন্য নিয়মিত বিভিন্ন প্রতিযোগিতা ও অ্যাডভ্যান্স টেকনোলজির উপরে ওয়ার্কশপ আয়োজন করছে।  চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের সাথে তাল মিলিয়ে নিজেকে এগিয়ে নিতে এবং আন্তর্জাতিক মঞ্চে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করার এটা অন্যতম বড় সুযোগ। ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানে প্রযুক্তিপ্রেমীদের অংশগ্রহন বড় ভুমিকা রাখবে আশা করি।  রেজিস্ট্রেশন করতে বা আরো জানতে https://roboadda.com.bd/texhibition/ এই এড্রেসে ভিজিট করুন।

Continue Readingবছরের অন্যতম বড় অনলাইন টেক ফেস্ট Texhibition 2021

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে শুভেচ্ছা

  • Post author:

একটি ক্ষুদ্র আয়তনের দেশ হয়েও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে বাংলাদেশ ইতোমধ্যে প্রযুক্তিতে ইতিবাচক পরিবর্তন এনে সারা বিশ্বের নিকট একটি অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত হয়ে দাঁড়িয়েছে।লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে জন্ম নেওয়া এই বাংলাদেশকে আজকের অবস্থায় আসতে অতিক্রম করতে হয়েছে হাজার প্রতিবন্ধকতা। কিন্তু দেশটির স্বাধীনতার ৫০ বর্ষপূর্তিতে আজ একটি কথা বলতেই হয়, বাংলাদেশ প্রযুক্তির ব্যবহারে অনেক এগিয়ে গিয়েছে। বাংলাদেশ সরকার ২০০৮ সালের ১২ ডিসেম্বর ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকার করে এবং তার বাস্তবায়ন শুরু হয় ২০০৯ সাল থেকে। বিগত কয়েক বছরে এই ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানের অভিযাত্রায় প্রযুক্তির অভূতপূর্ব সম্প্রসারণ ঘটেছে। প্রযুক্তি ভিত্তিক সেবা পৌঁছে গিয়েছে মানুষের দোরগোড়ায়। বিশেষজ্ঞরা প্রযুক্তির এই অবিস্মরণীয় উন্নয়ন ও অগ্রগতিকে আখ্যায়িত করেছেন " ডিজিটাল রেনেসাঁ বা ডিজিটাল নবজাগরণ" হিসেবে। তথ্য প্রযুক্তি খাতের অর্জন ও সাফল্য আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও আমাদের জন্য বয়ে এনেছে সম্মান। ২০১৫ সালের ২৫ জুলাই কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তথ্য প্রযুক্তিতে এগিয়ে যাওয়ার উদাহরণ হিসেবে বাংলাদেশের নাম উল্লেখ করেছিলেন। নোবেল জয়ী ভারতীয় অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেনের মতে "বিশ্বকে চমকে দেবার মত সাফল্য আছে বাংলাদেশের।" আইসিটি অবকাঠামো গড়ে তোলার অংশ হিসেবে জেলা থেকে শুরু করে উপজেলা পর্যন্ত কানেক্টিভিটি সম্প্রসারিত করেছে। ৫৮ টি মন্ত্রণালয়, ২২৭ টি অধিদপ্তর, ৬৪টি জেলার প্রশাসনের কার্যলয়কে নেটওয়ার্কের আওতায় আনা হয়েছে। এরপর যশোরে সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক নির্মাণ, সিলেটে ইলেক্ট্রনিক সিটি স্থাপন, রাজশাহীতে বরেন্দ্র সিলিকন সিটি স্থাপন, নাটোরে আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়াও বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কতৃপক্ষের মাধ্যমে ৫টি প্রতিষ্ঠানকে বেসরকারি সফটওয়্যার পার্ক হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। বাংলাদেশ স্বাধীনতার ৫০ বছরেরও কম সময়ে দ্রুতগতি সম্পন্ন "বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট - ১" উৎক্ষেপণের মাধ্যমে বুঝিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ বর্তমানে প্রযুক্তিতে কতটা এগিয়ে। ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নকে বাস্তবতায় রূপ দিতে বাংলাদেশ সরকার নিয়েছে যুগান্তকারী সব পদক্ষেপ। দেশের তৃণমূল পর্যায়ে প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে সরকারি সেবা পৌঁছে দেবার অভিপ্রায়ে দেশের ৪৫৫০টি ইউনিয়ন পরিষদে…

Continue Readingস্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে শুভেচ্ছা

RoboAdda’র বিজয় উল্লাসের সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

  • Post author:

গত ১৯ই ডিসেম্বর, ২০২০ রাত নয়টায় একটি ভার্চুয়াল প্রোগ্রামের মাধ্যমে RoboAdda'র বিজয় উল্লাস ২০২০ এর বিজয়ীদের নাম ঘোষণা ও সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ গনিত অলিম্পিয়াডের সাধারন সম্পাদক মুনীর হাসান স্যার। ফেসবুক লাইভে অনুষ্ঠিত রোবোআড্ডার চিফ স্ট্রাটেজি অফিসার সাদিয়া আফরিন অনির উপস্থাপনায় এই প্রোগ্রামে আরো উপস্থিত ছিলেন রোবোআড্ডার দুজন উপদেষ্টা বিশ্বপ্রিয় চক্রবর্তী স্যার (এসিস্ট্যান্ট প্রফেসর, সিএসই বিভাগ, সাস্ট) ও তাসনীম বিনতে শওকত ম্যাম (এসিস্ট্যান্ট প্রফেসর, ইসিই বিভাগ, রুয়েট), প্রোগ্রামিং কনটেস্টের জাজ মারুফ আহমেদ মৃদুল স্যার (লেকচারার, সিএসই বিভাগ, সাস্ট), আরডু অলিম্পিয়াডের জাজ মিশাল ইসলাম, রোবোআড্ডার চিফ অপারেশন অফিসার মিনহাজুল আবেদীন ও রোবোআড্ডার চিফ টেকনিক্যাল অফিসার ফজলে এলাহী তন্ময়। স্বাগত বক্তব্যে মিনহাজুল আবেদীন বলেন, বিজয়ের ৪৯ বছর পূর্ণ করে ৫০ এ পা দিবে বাংলাদেশ। স্বাধীনতার এই ৫০ বছরে অনুন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে। শিক্ষা, গবেষণা, অর্থনীতি সব ক্ষেত্রেই খুব দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে দেশ। আর ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে টেকনোলজি শিক্ষার গুরুত্ব ও বাড়ছে দিনদিন। সেই লক্ষ্যে সবার কাছে টেকনোলজির শিক্ষা সহজ করে নিজের ভাষায় পৌঁছে দেওয়ার কাজ করছে RoboAdda। পাশাপাশি টেকনোলজি নিয়ে গবেষণা আর নতুন কিছু করার উদ্যমে সব সময় কাজ করে যাচ্ছে আমাদের রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট টিম। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুনীর হাসান স্যার বলেন, রোবোটিক্স ও প্রযুক্তি নিয়ে রোবো আড্ডার কার্যক্রম বেশ প্রশংসার দাবি রাখে। রোবোআড্ডা দেশের স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদেরও রোবোটিক্স নিয়ে জানার ও কাজ  করার দারুন সুযোগ করে দিচ্ছে। রোবোআড্ডার কার্যক্রম ও উদ্দেশ্যকে আমি সাধুবাদ জানাই এবং ভবিষ্যতে তাদের কাজের পরিধি আরো বৃদ্ধি পাবে বলেই আমার প্রত্যাশা। বক্তব্যে বিশ্বপ্রিয় চক্রবর্তী স্যার বলেন, রোবোআড্ডার কার্যক্রম অবশ্যই দেশের রোবোটিক্স ও প্রোগ্রামিং এর জগতে অবদান রাখছে।  উন্মুক্ত এই প্ল্যাটফর্মে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরাও নিজেদের প্রমান করার সুযোগ পাচ্ছে। রোবো আড্ডার সাথে যুক্ত থাকতে পারা আমার জন্য একই…

Continue ReadingRoboAdda’র বিজয় উল্লাসের সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

RoboAdda’র বিজয় উল্লাস

  • Post author:

RoboAdda, একটি টেকনোলজি বেজড কমিউনিটি প্ল্যাটফর্ম। টেকনোলজি নিয়ে যারা কাজ করে তাদের একটি কমিউনিটি প্ল্যাটফর্মে নিয়ে আসার কাজ করছি আমরা। টেকনোলজির শিক্ষা সহজ ভাবে, মজা নিয়ে, সহজলভ্য ভাষায় সবার কাছে পৌঁছে দেওয়া আর সবার জন্য কাজের সুযোগ করে দেওয়া আমাদের লক্ষ্য। RoboAdda বিজয়ের মাস এ নিয়ে এসেছে ইভেন্ট RoboAdda'র বিজয় উল্লাস যেখানে থাকছে ২ টি ইভেন্ট।একটি হলো (প্রোগ্রামিং কনটেস্ট) অন্যটি (আরডু অলিম্পিয়াড)। এছাড়া রোবোটিক্স, এডভ্যান্স টেকনোলজি, ডাটা সায়েন্স নিয়ে থাকবে সেমিনার। প্রোগ্রামিং কনটেস্ট RoboAdda'র বিজয় উল্লাস এর অন্যতম আকর্ষণীয় সেগমেন্ট "প্রোগ্রামিং কনটেস্ট"। এই কনটেস্টটি বিশেষ করে বিগেনারদের জন্য। যারা প্রোগ্রামিং কেবল শুরু করেছ বা যারা অল্প পারো তাদেরকে বেশি করে উৎসাহিত করছি অংশ নেওয়ার জন্য। স্কুল, কলেজের যেকোন শিক্ষার্থী আর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষের (২০১৯-২০ সেশন) শিক্ষার্থীরা অংশ নিতে পারবে। এককভাবে অংশ নিতে হবে, টিম হিসাবে অংশ নেওয়া যাবে না।  প্রাইজ: চ্যাম্পিয়ন, রানার্স আপ, সেকেন্ড রানার্স আপ সহ সর্বমোট ১০ জন উইনারের জন্য থাকবে প্রাইজমানি, সার্টিফিকেট, গিফট সহ ৮০০০+ টাকা সমমূল্যের পুরস্কার। রুলসবুক: https://cutt.ly/BhnCilo আরডু অলিম্পিয়াড আরডুইনো সম্পর্কে কতটুকু জানো? একটু যাচাই হয়ে যাক। আমাদের এবারের আয়োজনে থাকছে আরডু অলিম্পিয়াড, যেখানে থাকবে আরডুইনো আর কিছু কমন ইলেকট্রনিক্স কম্পোনেন্ট নিয়ে প্রশ্ন। পরীক্ষা দাও আর জিতে নাও আকর্ষনীয় পুরস্কার। যেকোন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ যেকোন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বর্তমান শিক্ষার্থী অংশ নিতে পারবে। সিলেবাসঃ ব্যাসিক আরডুইনো (প্রোগ্রামিং, সার্কিট, স্ট্রাকচার, কমিউনিকেশন সিস্টেম ইত্যাদি), প্রয়োজনীয় ইলেকট্রনিক্স কম্পোন্টেন্ট।  প্রাইজ: চ্যাম্পিয়ন, রানার্স আপ, সেকেন্ড রানার্স আপ সহ সর্বমোট ৫ জন উইনারের জন্য থাকবে প্রাইজমানি, সার্টিফিকেট, গিফট সহ ৫০০০+ টাকা সমমূল্যের পুরস্কার। রুলসবুক: https://cutt.ly/8hmTN5S সেমিনারঃ টপিকঃ রোবোটিক্স, এডভ্যান্স টেকনোলজি, ডাটা সায়েন্স ইত্যাদি। একবার রেজিস্ট্রেশন করেই সবগুলো সেমিনারে অংশ নেওয়া যাবে। অংশগ্রহনকারী সবার জন্যই থাকছে সার্টিফিকেট। সেমিনার জুম মিটিংয়ে অনুষ্ঠিত হবে। সেমিনারে সিট লিমিটেড, তাই আগে রেজিস্ট্রেশন করে তোমার সিট নিশ্চিত করো। রেজিস্ট্রেশন প্রোগ্রামিং…

Continue ReadingRoboAdda’র বিজয় উল্লাস

৩য় বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াডে RoboAdda এর প্রতিযোগীদের সাফল্য

  • Post author:

এবছর অনুষ্ঠিত ৩য় বাংলাদেশ রোবটিক অলিম্পিয়াড এ রোবট গ্যাদারিং প্রতিযোগিতায় জুনিয়র ক্যাটাগরি তে সারাদেশ থেকে একমাত্র ব্রোঞ্জ মেডেল অর্জন করায় মাহির তাজওয়ার কে অভিনন্দন। এছাড়াও চ্যালেঞ্জ ক্যাটাগরি থেকে একমাত্র অনারেবল মেনশন অর্জন করায় মাজেদুল ইসলাম নাইমকেও অভিনন্দন। এবছর রোব-আড্ডার প্রযোজনায় আয়োজিত বেসিক লাইন ফলোয়িং ওয়ার্কশপ এ অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী কে বিনামূল্যে বেসিক লাইন ফলোয়িং রোবট বানানোর উপায়, এবং কোডিং সিস্টেম শেখানো হয়েছে। এদের মধ্য থেকে পরবর্তিতে রোবট গ্যাদারিং কে টার্গেট করা প্রতিযোগীদের আলাদা প্রশিক্ষন দেয়া হয়েছে এবং সহজ ধাঁচে কোডিং সিস্টেম এবং মেজ সলভ করার উপায় শেখানো হয়েছে। যার ফলশ্রুতিতে এবার এরা কঠোর পরিশ্রমের দ্বারা এই অভূতপূর্ব ফলাফল অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। যদিও বাজে ট্র‍্যাক এবং রোবটের অন্যান্য সমস্যার জন্য অনেক প্রতিযোগিই টাস্ক কমপ্লিট করতে পারেনি। তাদের উদ্দেশ্যে বলি, ভেঙে পড়োনা! সামনের দিনগুলোতে ভুলগুলো শুধরে নিয়ে আরও উন্নত সিস্টেমে প্রবলেম সলভ করতে পারবে এই আশা করছি। যেকোন প্রয়োজনে বা জিজ্ঞাসায় আমরা সবসময়ই পাশে আছি এবং থাকবো। এছাড়াও এবার আমাদের দিকনির্দেশনায় জুনিয়র ক্যাটাগরিতে রোবট ইন মুভি এবং ক্রিয়েটিভ ক্যাটাগরি দুটিতেই স্বর্ণপদক পাবার গৌরব অর্জন করেছে মিসবাহ উদ্দিন ইনান এবং জাইমা জাহিন ওয়ারা। তোমাদেরকেও প্রাণঢালা শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দন। এবারের পদকধারীদের IRO তে ভালো ফলাফল বয়ে নিয়ে আসার শুভকামনা রইলো! আমাদের এই অল্প সময়ের যাত্রায়, এটা অনেক বড় একটি অর্জন। তোমাদের সফলতা আমাদের প্রচেষ্টাকে আরও বেগবান করবে। সব সময় তোমাদের সাপোর্ট করার জন্য আমরা দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।

Continue Reading৩য় বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াডে RoboAdda এর প্রতিযোগীদের সাফল্য

ক্যাম্পাস এম্বাসেডর

  • Post author:

RoboAdda, একটি টেকনোলজি বেজড কমিউনিটি প্ল্যাটফর্ম। টেকনোলজি নিয়ে যারা কাজ করে তাদের একটি কমিউনিটি প্ল্যাটফর্মে নিয়ে আসার কাজ করছি আমরা। টেকনোলজির শিক্ষা সহজ ভাবে, মজা নিয়ে, বাংলায় সবার কাছে পৌঁছে দেওয়া আর সবার জন্য কাজের সুযোগ করে দেওয়া আমাদের লক্ষ্য। আমরা আমাদের এই প্রচেষ্টা এবং একটি সার্বজনীন কমিউনিটি বিল্ডআপের প্রচেষ্টায় পৌঁছে যেতে চাই প্রতিটি ইনস্টিটিউট এর কোণায় কোণায়। এক্ষেত্রে সবথেকে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখতে পারে একটি RoboAdda campus ambassador team.  যদি আপনি হতে চান সেই টিম এর একজন যুগান্তকারী সদস্য তাহলে দেরী না করে নিচের লিংক এর ফর্ম টি পূরণ করুন। কারা আবেদন করতে পারবে? ইউনিভার্সিটি কিংবা কলেজের বর্তমান শিক্ষার্থী হতে হবে।কাজের ব্যাপারে ডেডিকেটেড থাকতে হবে।আগে অভিজ্ঞতা না থাকলেও আগ্রহ থাকলে এপ্লাই করতে উৎসাহিত করছি। আপনি কি পাবেন? একটি সার্টিফিকেটআপনার কাজের উপর রিকমেন্ডেশন লেটার।আমাদের সব কোর্স একসেস করতে বিশেষ সুবিধাআমাদের সব ইভেন্টে অংশ নিতে বিশেষ সুবিধা বিভিন্ন রিসোর্সফুল পার্সনদের সাথে নেটওয়ার্ক বিল্ডআপ এর সুযোগটেকনোলজি (রোবোটিক্স, প্রোগ্রামিং, থ্রিডি ডিজাইন, ওয়েব/অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট, মেশিন লার্নিং, আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স, ডিজিটাল মার্কেটিং, গ্রাফিক্স ডিজাইনিং ইত্যাদি) নিয়ে কাজ করতে আমাদের টিমের থেকে সাপোর্ট। আমাদের ফিজিক্যাল ইভেন্টে অংশ নেওয়া এবং বিভিন্ন রিসোর্সফুল পার্সনদের সাথে মিটআপের সুযোগ। একটি এক্সপার্ট আর ক্রিয়েটিভ টিমের সাথে কাজ করার সুযোগ।আপনার পারফরমেন্সের ভিত্তিতে ইন্টার্ন বা কোর টিমে যুক্ত হবার সুযোগ। Registration Link: https://forms.gle/cENaMvBxvEmAryG29

Continue Readingক্যাম্পাস এম্বাসেডর

ব্যাসিক লাইন ফলোয়ার ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত

  • Post author:

২৫ আগস্ট, ২০২০ থেকে শুরু হয়ে ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ পর্যন্ত চলে ব্যাসিক লাইন ফলোয়ার ওয়ার্কশপ। অনলাইন ভিত্তিক এই ওয়ার্কশপে অংশ নেয় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ, স্কুল পড়ুয়া শতাধিক শিক্ষার্থী। সম্পূর্ণ বিনামূল্যে এই ওয়ার্কশপ করানো হয়। এর আগে ৪২ টি বিশ্ববিদ্যালয় সহ মোট ৭৫ টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে, দেশের ৪০+ জেলার ১০০+ উপজেলা থেকে দুই শতাধিক শিক্ষার্থী রেজিস্ট্রেশন করে। যেহেতু এটি একটি অনলাইন ভিত্তিক ওয়ার্কশপ তাই অনেক সীমাবদ্ধতা থেকে যায়। যার জন্য বাছাইকৃতদের নিয়ে শুরু হয় ওয়ার্কশপ। ১০ দিনের এই ওয়ার্কশপে আরডুইনো পরিচিতি, সেন্সর অ্যারে ডিজাইন, পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট, কোডিং সহ বিভিন্ন বিষয়ে শেখানো হয়। এই ওয়ার্কশপ শেষে স্টুডেন্টরা নিজেরাই নিজেদের লাইন ফলোয়ার রোবট বানায় আর সেটা ব্লুটুথ দিয়ে কন্ট্রোল করতে পারে। এই ওয়ার্কশপে যে টপিকগুলো কাভার করা হয়: আরডুইনো পিন-আউট এবং কোডিং এনালগ রিডিং এবং TCRT 5000 সেন্সর অ্যারে সার্কিট ডিজাইন পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট এবং মডিউল মটর এবং মটর ড্রাইভার ব্লুটুথ কন্ট্রোল সেন্সর অ্যারে রিডিং এবং এলগরিদম বেসিক লাইন ফলো কোডিং লাইন ফলো লজিক (শার্প টার্ন এবং স্টপ পয়েন্ট ডিটেকশন)  বিভিন্ন সীমাবদ্ধতার কারণে অনেককে সুযোগ দিতে পারি নি আমরা কিংবা অনেকেই বিভিন্ন সমস্যার জন্য অংশ নিতে পারে নি। তাই সবার অনুরোধে ওয়ার্কশপের ভিডিওগুলো পাওয়া যাবে এই লিংকে। কোর্সে ফ্রীতে এনরোল করলে অংশ নিতে পারবে ওয়ার্কশপে।

Continue Readingব্যাসিক লাইন ফলোয়ার ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত