AI অথবা ML-এ পাইথন এর জনপ্রিয়তার কারণ

হ্যালো বন্ধুরা, কেমন আছেন আপনারা। আজ চলে এলাম নতুন এক বিষয় নিয়ে। আশা করি "বিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট" সিরিজের মাধ্যমে আপনার বুঝতে পেরেছেন Artificial Intelligence এর গুরুত্ব। তাই আজ আলোচনা করব কিভাবে এ বিষয়ে প্রোগ্রামিং করে। প্রথমে আমাদের বুঝতে হবে কেন প্রত্যেকে তাদের দৈনন্দিন জীবনে Artificial Intelligence (AI) and Machine Learning (ML) ব্যবহার করে। কারণ, এটি তাদের দৈনন্দিন জীবনে আরও জটিল সমস্যা সমাধানে সহায়তা করে এবং এটি ভবিষ্যৎ।আজকালকার জীবনে AI এর প্রযোজনীতা কোন Science fiction এর চাইতেও বেশি। আপনি আপনার চারপাশে এমন AI হাজার হাজার দেখতে পাবেন। আপনার মোবাইলের Face recognised লক সিস্টেম, Social Media, যখন কাউকে মেসেজ করেন, গুগল সার্চ, Digital ভয়েস এসিস্ট্যান্ট, Smart home device থেকে শুরু করে ব্যাংকিং-ব্যবস্থায় ও এই AI ব্যাবহৃত হচ্ছে।তাহলে বুঝতেই পারছেন কেন এই AI এত গুরুত্বপূর্ণ। Top five benefits of AI পাইথন একটি ইন্টারপ্রেটেড ল্যাঙ্গুয়েজ (Interpreted language)। প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজগুলো সাধারনত দুই ধরনের হয়ে থাকে। কম্পাইলড ল্যাঙ্গুয়েজ (Compiled language) এবং ইন্টারপ্রেটেড ল্যাঙ্গুয়েজ(Interpreted language)। Python Book কম্পাইলড ল্যাঙ্গুয়েজে পুরো সোর্স কোড কম্পাইল করা শেষে তারপর এক্সিকিউট হয়(যেমনঃ সি) এবং ইন্টারপ্রেটেড ল্যাঙ্গুয়েজ একটি একটি করে লাইন এক্সিকিউট হয়(যেমনঃ পাইথন)।এটি frontend language হিসাবেও ব্যবহার করা যেতে পারে।এজন্যই এটি Artificial Intelligence (AI)এ ব্যবহৃত হয়। AI এর পরিবর্তে এটি machine learning, soft computing, NLP প্রোগ্রামিংয়ে এবং ওয়েব স্ক্রিপ্টিং বা Ethical hacking হিসাবে ব্যবহৃত হয়। Popularity of Python আমাদের আজকে জানার বিষয় হল Artificial intelligence এর ক্ষেত্রে কেন Python প্রোগ্রামিং জনপ্রিয় ও বেশি ব্যাবহৃত হয়? চলুন তাহলে কয়েকটি কারণ দেখে নেয়া যাক। ১/ বিশাল Library.২/ Flexibility৩/ Matlab এর সাথে Python এর সিনট্যাক্স এর মিল।৪/ Readability. এছাড়াও আরো অনেক কারন রয়েছে। আমার কাছে এসব কারনকেই সবচেয়ে বশি গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়। লাইব্রেরিগুলো থাকার ফলে একজন নতুন রিসার্চার/প্রোগ্রামার খুব সহজেই মেশিন লার্নিং টেকনিক শিখে…

Continue ReadingAI অথবা ML-এ পাইথন এর জনপ্রিয়তার কারণ

বিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-9)

হ্যালো বন্ধুরা,দেখতে দেখতে আমরা আমাদের এ সিরিজের শেষ পর্বে এসে গেলাম। আজ আমাদের এ সিরিজের শেষ পর্ব। আজ আমরা যে রোবটটি নিয়ে জানবো তা হল HANDEL. Robotics শিল্পের অন্যতম Giant কোম্পানির নামগুলো যদি বলা হয় তাদের মধ্যে Boston Dynamics এর নাম শীর্ষ থাকবে।তাদের রোবটগুলো অন্য সব কোম্পানির তুলনায় অালাদা। Boston dynamics এর বিস্তারিত আমরা আমাদের ২য় পর্বে(Link:https://roboadda.com.bd/wp-admin/post.php?post=591&action=edit) দেখেছিলাম। তাই আজ আর সেদিকে গেলাম না। অন্যান্য রোবট কোম্পানিরা যেখানে ২পা,৪পা বিশিষ্ট Industrial রোবট তৈরী করতে ব্যাস্ত, সেখানে 2019 সালে Boston Dynamics চাকা বিশিষ্ট Industrial রোবট তৈরী করে রোবট পাড়ায় রিতীমত হৈচৈ তৈরী করেছিল। Handle “It's also got a mode where it can squat down and you can manually wheel it around,”:মার্ক রইবার্ট বোস্টন ডায়নামিক্স হ্যান্ডেলের 1st versionটি 2017 এর প্রথম দিকে introduced করেছিল, এটি একটি R&D রোবট হিসাবে বর্ণনা করে। সেই Desing পায়ের পরিবর্তে দুটি চাকা বৈশিষ্ট্যযুক্ত। এপ্রিল 2019 এ, Boston Dynamics হ্যান্ডেলের একটি নতুন সংস্করণ উন্মোচন করেছে।নতুন রোবটটি লজিস্টিক অ্যাপ্লিকেশনগুলির জন্য একটি মোবাইল ম্যানিপুলেশন প্ল্যাটফর্ম হিসাবে ডিজাইন করা হয়েছে। এবং এটি একটি ছোট পায়ের ছাপ দখল করার সময় ভারী বোঝা বাছাই করতে পারে। Warehouse এ থাকা মালামালকে এ রোবটটি Assamble এবং Disassembled করে।এ কাজটি সে করে Autonomous ভাবে। হ্যান্ডেল যতটা উপলব্ধি বিবেচনা করা যায় তত সহজ। Handle Picking up Box Boston Dynamics's মতে, “Handle autonomously performs mixed SKU pallet building and depalletizing after initialization and localizing against the pallets. The on-board vision system on Handle tracks the marked pallets for navigation and finds individual boxes for grasping and placing.” Handle V.2 চলুন দেখি কিভাবে এর ভেতরকার সব ব্যাপার কাজ করেঃ বাক্সগুলি সনাক্ত এবং সনাক্ত করতে ডিপ-লার্নিং ভিশন সফ্টওয়্যার ব্যবহার করে হ্যান্ডেল। এটি একটি pushbutton দ্বারা unload করে trucks, palletizes, and depalletizes.…

Continue Readingবিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-9)

বিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-8)

হ্যালো বন্ধুরা, কেমন আছেন? দেখতে দেখতে সিরিজের প্রায় শেষের দিকে এসে পড়েছি। আজ আমরা জানব ইরানি একটি রোবট নিয়ে। আপনি যদি মনে করে থাকেন বিশ্বমানের রোবটগুলো শুধু Europe, America, Japan, Korea তে তৈরী হয় তাহলে আপনার সে ধারনা ভেঙে দিতে এ পর্বই যথেষ্ট। University of Tehran 2008 সালে তাদের প্রথম রোবট SURENA প্রকাশ করে। তার পর থেকে এ সিরিজ নিয়ে চলে গবেষনা ও ধাপে ধাপে প্রকাশ করে নতুন নতুন Version. সর্বশেষ ২০১৯সালের ১৪ই ডিসেম্বরে তারা SURENA IV সকলের জন্য উন্মোচন করে। SURENA নামকরন করা হয়েছে তাদের দেশের জেনারেল এর নামানুসারে। তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ের মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ডঃ অগিল ইউসফি-কোমার তত্ত্বাবধানে 50 টিরও বেশি গবেষক CAST (Center of Advanced Systems and Technologies) -তে রোবটটি তৈরি করেছেন। SURENA project টি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির জন্যরাষ্ট্রপতি ডেপুটি দ্বারা অর্থায়ন করা হয় এবং পূর্ববর্তী সংস্করণগুলির তুলনায় আরও উন্নত একটি উপযুক্ত গবেষণা প্ল্যাটফর্ম ডিজাইনের লক্ষ্য নিয়ে শান্তি ও মানবতার দিকনির্দেশে প্রযুক্তি অগ্রগতির প্রতীক হিসাবে বিবেচিত হয়। The Institute of Electrical and ElectronicsEngineers (IEEE) SURENA IV রোবটকে তার পারফরম্যান্স বিশ্লেষণের পরে বিশ্বের পাঁচটি বিশিষ্ট রোবটের মধ্যে স্থান দিয়েছে। SURENA IV while griping ball নতুন প্রজন্মের মধ্যে, FPGA boardকে কাজে লাগিয়ে control loop frequencyটি 200 হার্জে উন্নীত করা হয়েছে, যা এটিকে অনলাইন কন্ট্রোলার এবং অনুমানকারীকে বাস্তবায়িত করা সম্ভব করে তোলে। এর দ্বারা রোবট অপারেশন সিস্টেমের মাধ্যমে (ROS),state monitoring, real time implementation of algorithms এবং একাধিক প্রোগ্রাম একযোগে চলমান সোজা হয়ে উঠেছে। রোবোটটিতে face detection and counting, object detection and position measurement, activity detection, speech recognition (speech to text) andspeech generation (text to speech) এর দক্ষতা রয়েছে যার ফলে আরও ভাল ভয়েস ব্যবহারকারী ইন্টারফেস অর্জন করা যায়। Artificial Intelligenceর ক্ষমতা এবং পুরো শরীরের motion planning সংমিশ্রণের মাধ্যমে Online grip, face…

Continue Readingবিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-8)

বিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-7)

হ্যালো বন্ধুরা, কেমন আছেন আপনারা সবাই। আশা করছি সবাই ভালই আছে আমাদের এই সিরিজের কোন কোন পর্বে আমরা রোবটের দৌড়াতে দেখেছি, কোন কোন পর্বে আকাশে উঠতে ও দেখেছি। তাহলে পানিতে ডুব দেওয়া বাকি থাকবে কেন? তো চলুন আজকে এর রোবটের মাধ্যমে আমরা পানি থেকে ঘুরে আসি। AQUANAUT in Teat Lab "AQUANAUT-The Transformer Under the sea" নামের এই রোবটটি ২০১৯ সালে তৈরী করে Huston Mechatronics Inc. নামক একটি আমেরিকান কোম্পানি। এ কোম্পানি মূলত Cloud based ecosystem এর Subsea রোবট তৈরী করে যা পানির নিচে বিভিন্ন কাজ করে থাকে। Aquanaut ছাড়াও আরো ২ধরনের রোবট (Commander, Olympic arm) তৈরী করেছে এ কোম্পানি। Aquanaut হল একটি Transformer যা পানির নিচে গিয়ে কাজ করে। সাধারন অবস্থায় দেখতে এ রোবটটিকে Submarine বলে ভাবলেও কেউ ভুল করবে না। কিন্তু এটিি আসলে মূলত একটি Transforming Vehicle যা পানির নিচে Worksite এ গিয়ে তার হাত মেলে রোবটে পরিনত হয়। হাত মেলে ধরার পর সে তার নির্দিষ্ট কাজ করতে যাকে যেই কাজ নিয়ন্ত্রিত হয় কোন এক কম্পিউটার থেকে তাকে Command দেয়া হলে। অর্থাৎ Aquanaut কে নিয়ন্ত্রণ করা হয় জলের উপর থেকে। Traditional ROV নিয়মেই সে কাজ করে থাকে। ROV কি তা বিশাল এক আলোচনা। তা অন্য কোন পর্বে করা যাবে। আজ না হয় Aquanaut কে নিয়েই জানতে থাকি। এ রোবটি বানানোর পিছনে মূলত কিছু কমার্শিয়াল ব্যাপার জড়িয়ে ছিল। যখন HMI company দেখলো বিশ্বের নানান যায়গায় পানির নিচের তেল উত্তোলন, খনিজ পদার্থ সন্ধান, গবেষনার কাজে সেই পুরনো ROV নিয়ম চলে আসছে তখন তারা চিন্তা করলো কেননা এই শিল্পে Intelligence এর ব্যবহার করা হচ্ছে না। আর এতে করে Gulf দেশগুলো থেকে প্রচুর অর্থও উপার্জন করা যাবে। সেই চিন্তা থেকেই জন্ম নিল Aquanaut এর।আর এসব চিন্তা কাদের মাথায় আসে জানেন? নাসার মত প্রতিষ্টানে কাজ…

Continue Readingবিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-7)

BOLT-The Fastest Camera Robot

হ্যালো বন্ধুরা, কেমন আছেন? আশা করছি ভালোই আছেন। আমাদের সবারই কম বেশি ছবি তোলার শখ থাকে। সাথে সাথে কারো থাকে ভিডিওগ্রাফি কিংবা সিনেমাটোগ্রাফির শখ। তাই যারা যারা সিনেমাটোগ্রাফি বা ভিডিওগ্রাফি পছন্দ করেন তারা নিশ্চয়ই আজকের এ ব্লগটি পছন্দ করবেন। চলুন তাহলে আজকের রোবটটি নিয়ে জেনে নিই। বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতি সম্পন্ন ক্যামেরা রোবট বলেছে এর নির্মাতা Mark Robert Motion Control. ১৯৬৬ সালে Australian এক Engineer প্রতিষ্টা করে এ কোম্পানি। যদিওবা বর্তমানে এ কোম্পানি Nikon এর মালিকানাধীন। ২০১৭ সালের শেষের দিকে Nikon কিনে নেয় এ কোম্পানিটি। Bolt, Bolt X, Bolt Jr এ ৩ Version এ রয়েছে এ ক্যামেরা রোবট। আজ আমরা জানব BOLT সম্পর্কে।Mark Roberts Motion Control (MRMC) কোম্পানির তৈরী করা এ রোবটি মূলত বেসিক দিক দিয়ে দেখতে গেলে একটি Robotic Arm. যে Arm এর উপর ক্যামেরা বসিয়ে খুব নিঁখুতভাবে Slow-mo, Micro ছবি তোলা যায় বা ভিডিও করা যায়। অন্যান্য প্রফেশনাল ক্যামেরার মত এই রোবট ক্যামেরাতে সাধারন মানের Frame rate যুক্ত কোন ক্যামেরা ব্যবহার করা হয় না।Sony FS7, Red Dragon এইসব ক্যামেরায় মূলত 300 rate frame এ ছবি তোলা হয়। কিন্তু Bolt এর Phantom flex4k এর frame rate হল 1000। আর যত বেশি Frame rate তত বেশি motion. সুতরাং বুঝতেই পারছেন। এবার একটু লক্ষ্য দেয়া যাক গতির উপর। গতি যে কি ধরনের হবে তা এই রোবটের নাম দেখেই বুঝতে পারছেন আশা করি। ছোট্ট করে একটা অংক করি, চলুন।আপনার গতি যদি ৫মিটার/সেকেন্ড হয় সেই পরিমান গতিকে ধরতে পারবে Bolt. এবার এরো একধাপ এগিয়ে আরেটু জটিল করি ব্যাপারটাকে। ধরুন সেই গতিতেই আপনি কিছু সময় ডান বাম সরে সরে যাচ্ছেন আর সেই সরে যাওয়া যদি ৩ থেকে ৩.৫ মিটারও হয় তবুও Bolt আপনার পিছু ছাড়বে না। আসুন গতি এক্কেবারে কমিয়ে দিই। থেমে যাই। একদম। হ্যাঁ গতি…

Continue ReadingBOLT-The Fastest Camera Robot

বিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-6)

বন্ধুরা, কেমন আছেন সবাই। আশা করি করোনাকালীন এসময় নিজেদেরকে কোন না কোন কাজে ব্যাস্ত রেখেছেন। সাথে যে নাটক সিনেমা দেখছেন না এমন মানুষ খুবই কম৷ কিছু সিনেমা সাজেস্ট করছি। দেখে নিতে পারেন। বেশ ভালো এবং সাথে ইংরেজিটাও চর্চা হবে। সিনেমাগুলো হলঃ Beauty and the beast, The lion king, Lilo & stitch, Bolt, Chicken Little. পরিবারকে সাথে নিয়ে দেখে নিতে পারেন এসব সিনেমা। সাথে যদি কোন ছোট্ট শিশু থাকে সে সবচেয়ে বেশি আনন্দ করে দেখবে এসব সিনেমা। কি ভাবছেন? আজ আমি হঠাৎ নাটক, সিনেমা নিয়ে কেন বলছি? কেনইবা রোবটিক্স সিরিজে এসব কথা বলছি? তাইতো??? আচ্ছা তাহলে চলুন একটু খোলসা করি ব্যাপারটা। আপনি জেনে নিশ্চয়ই আবাক হবেন, উপরে সাজেস্ট করা সিনেমাগুলো সবগুলোই Disney World বা The walt Disney Company এর প্রযোজিত সিনেমা। আর আজকে আমরা যে Advance, humaniod রোবট নিয়ে আলোচনা করতে যাচ্ছি তা এই Disney World কোম্পানির। এতদিন তো আপনাদের এমন সব রোবটদের সাথে পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলাম যারা শুধুমাত্র স্থলে বিশেষ কাজে পারদর্শীতার প্রমান দিয়েছে। আজ যে রোবটটি নিয়ে আলোচনা করবো তা আকাশে তথা বায়ুতে বিশেষ কাজে পারদর্শী যা এখনো পর্যন্ত কোন রোবটই করতে পারেনি। রোবটটির নাম হলো "STANTRONIC ROBOT". STUNTRONIC by Disney Disney তাদের এনিমেশন সিনেমার জন্য বিখ্যাত। কিন্তু আপনি জানেন কি Disney এর কিন্তু নিজস্ব Research Team আছে? হ্যাঁ, বন্ধুরা। Disney Research Team.picture আমি গুনে গুনে দেখলাম কমপক্ষে ৪৮০টির মত Research পেপার আছে এই Team এর। Disney Research Website বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর, ডক্টরদের সাথে একত্রিত হয়ে কাজ কর এ দল। Machine Learning, Artificial intelligence, Big data, AR/VR, Digital Humans, Animation, Robotics, Visual Display Technology, Wireless Communication and Ubiquitous Computing সব কিছু নিয়েই কাজ করে এরা। Disney Research Team আরো কয়েকটি Autonomous Robot নিয়ে এসেছিলো। কিন্তু কোন এক অজানা কারনে সেসব…

Continue Readingবিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-6)

বিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-5)

হ্যালো বন্ধুরা, কেমন আছেন সবাই? আজ আমরা জানবো এ সিরিজের ৪র্থ রোবট সম্পর্কে। এ রোবটটি "Boston Dynamics" এর আরেকটি উল্লেখযোগ্য আবিষ্কার। Boston Dynamics হল বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় রোবটিক্স কোম্পানি গুলোর মধ্যে একটি। সাধারনত তারা তাদের রোবটগুলো কোন বিশেষ দলের জন্য তৈরী করে থাকে। তাই বিক্রি করা সে রোবটগুলো কোথা কি কাজ করে তা খুব একটা জানা যায় না। আপনারা যারা Boston Dynamics নিয়ে জানতে চান তারা চাইলে আমাদের এই সিরিজের ২য় পর্বটি দেখে আসতে পারেন। সেই পর্বে আমি আপনাদের বলেছিলাম Boston Dynamics সম্পর্কে৷ তো চলুন আজ আর সেই বিস্তারিত আলোচনার দিকে না গিয়ে সরাসরি রোবটে চলে যাই। Picture: ATLAS Boston Dynamics এর রোবটগুলোর মধ্যে BigDog, Cheetah, LS3, Rhex, Atlas বিশেষভাবে উল্লেখ যোগ্য। আজকে আমরা যে রোবটটি নিয়ে জানবো তার নাম ''ATLAS''. Atlas তৈরী করা হয়েছিলো Boston Dynamics এর ''PETMAN'' এর উপর ভিত্তি করে। Boston dynamics মূলত এখন পর্যন্ত ফোকাস ২টি রোবটের উপর। একটি হল SPOT যা নিয়ে ২য় পর্বে আলোচনা করেছি আরেকটি হল ATLAS (an adult size humanoid robot). Picture: SPOT AND ATLAS Biped humanoid এ রোবটটি তৈরীর মূল উদ্দেশ্য ছিলো USA Defence Advance Research Project Agency (DARPA) এর ''DARPA Robotic Challenge'' প্রতিযোগিতায় জয়ের জন্য। মোট ৮টি ধাপ পার করতে হয় একে। যদিও ৭টিতে সফল ও ১টিতে ব্যার্থ হয়।তাই তারা জিততে পারে নি। তবুও বেসিক সিস্টেম যখন DARPA এর পছন্দ হয় তখন তারা Atlas কে সম্পূর্ণভাবে তৈরী করতে Order দেয়। নিজে নিজে গাড়িতে উঠা থেকে শুরু করে গাড়ি চালিয়ে নিয়ে যাওয়া, যেসব স্থানে মানুষ যেতে পারেনা সেসব স্থানে সে গিয়ে Rescue মিশন সম্পন্ন করতে পারে। এমনকি সামনে কোন দেয়াল থাকেলে প্রয়োজনে তা ভেঙেও ফেলতে পারে। Can you Imagine? দেয়াল ভেঙে ফেলতে পারে Atlas. যা বিশেষভাবে আকর্ষন করে DARPA কে Atlas এর…

Continue Readingবিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-5)

বিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-4)

হ্যালো বন্ধুরা, আচ্ছা, চিন্তা করুন তো এমন কোন রোবট তৈরি করা হলো যে রোবট Siri এবং Alexa এর মত Digital Assistant হিসেবে কাজ করবে কিন্তু তাদের মতো একটি নির্দিষ্ট জায়গায় বসে না থেকে এদিক সেদিক ঘোরাঘুরি করতে পারবে। হ্যাঁ, তেমনি একটি রোবট -PAPPER তৈরি করেছে জাপানের সবথেকে বড় কোম্পানি softbank। এটি মানুষের বেসিক ইমোশন চিহ্নিত করতে পারে তাই একে বলা হয় বিশ্বের সর্বপ্রথম social humanoid রোবট। আমরা এর আগের একটি পর্বে দেখেছিলাম জাপানের রোবটিক্স ইন্ডাস্ট্রি কত বড়। এবং তারই একটি সবচেয়ে বড় উদাহরণ হলো এই softbank রোবটিক্স। মূলত softbank Telecom এর একটি শাখা হচ্ছে softbank রোবটিক্স। Softbank রোবটিক্স এর আরো নানান ধরনের humanoid রোবট রয়েছে যা ডিজিটাল এসিস্ট্যান্ট হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। তাদের মধ্যে NAO, ROMEO অন্যতম। Papper It's not just a robot, it's pepper - Softbank. মূলত Pepper রোবটটি তৈরি করে Aldebaran রোবটিক্স নামক একটি ফ্রান্সের রোবটিক্স কোম্পানি। ধারণা করা হয় 2012 সালের দিকে এই ফ্রান্সের কোম্পানিটি দুই বছর গোপনে পরীক্ষা চালিয়ে ছিল এই রোবট তৈরি করার জন্য। এবং যখন সফল হয় তখন 2015 সালের সফট ব্যাংক কোম্পানি এই রোবটটি কিনে নেয়। Aldebaran Robotics CEO & Soft-bank CEO with PEPPER জাপানের Softbank চাচ্ছিলো এমন কোন রোবট যা মানুষের জন্য কোনভাবেই হুমকি হবেনা বরং মানুষকে আনন্দ দিবে, মানুষের সাথে আলাপ করবে, বিদ্যালয়ে বাচ্চাদের খেলার সাথী হবে, হোটেল কিংবা ব্যাবসায়ের ক্ষেত্রে Assistant হিসেবে কাজ করবে। তাই তারা Pepper কে কিনে নেয়ার আগ্রহ দেখায়।4 feet উচ্চতার এই রোবটটি আপনি ব্যবহার করতে পারবেন commercial, Sports, business, academic কাজে এমনকি ঘরে আপনার বাচ্চার সাথে খেলা করার জন্য এই রোবটটি ব্যবহার করতে পারবেন। Pepper হল একটি open source platform যেমন Arduino এর মত Modify প্রোগ্রাম ব্যবহার করতে পারি। এবং এই রোবটটি সর্বোচ্চ 15 টি ভাষা সমর্থন করে।…

Continue Readingবিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-4)

একটি ভুল, ১ঘন্টা সময় অতঃপর সমাধান

হ্যালো বন্ধুরা, আজ আপনাদের সথে Arduino এর খুবই সাধারন একটি ভুল কিন্তু খুবই মারাত্মক ভুল নিয়ে আলোচনা করবো। এ ভুল যে আপনি ও করবেন তেমন নাহ্। কিন্তু মনের অজান্তেই এ ভুল হতে পারে। যা আমি করছি। তাই মনে হলো আপনাদের সাথে এ ব্যাপারটা শেয়ার করি। মাঝে মাঝে কাজ করতে গেলে দেখা যায় খুব সিম্পল কোন ভুলের কারনে আমাদের প্রোজেক্ট আর Run হয় না। সেই ভুলটি কোথায় তা খুঁজতে খুঁজতে মোটামুটি ভালোই একটা সময় নষ্ট হয়। আর সেই প্রোজেক্টটি যদি কোন Complicated প্রোজেক্ট হয় তাহলে মাথার অবস্থা যে কি হবে তা আর নাই বা বলি। যারা এ সমস্যার মুখোমুখি হয়েছেন তারাই ভালো জানেন। লিখে বা বলে এ ধারনা দেয়ার ক্ষমতা কারো নেই। আজ আমি একটা সিম্পল কোড দিয়ে কয়েকটি বিভিন্ন Motor driver এ আমার মোটরগুলো চালাতে চেষ্টা করি। সমস্যা তখনই হয় যখন দেখি মোটরের কানেকশন থেকে শুরু করে কোড, সব ঠিকাছে কিন্তু Arduino কে Touch না করলে মোটর ঘুরছে না। কোন ভাবেই সমস্যা খুঁজে বের করতে পারছিলাম না সমস্যা কোথায়। ১ঘন্টা চলে গেল। নাহ্, কোনভাবেই হিসেব মিলাতে পারছিলাম না। বারবার হাত দিয়ে ধরে রেখে রেখে Run করে দেখছিলাম কোডের শর্ত গুলোর সাথে মিলে কিনা। হঠাৎ কোন এক পিনের সরু মাথা হাতের আঙ্গুলে আঘাত লাগলো। তখনই হিসাব মিলল। খেয়াল করে দেখলাম আমার শরীরের মধ্যে Ground নামক একটা ব্যাপার থাকে। সাথে সাথে Arduino এর পাওয়ার পিনে (+5v,GND,GND) খেয়াল করলাম। কোন Input ই নেই। Arduino pin out (Image from google) বাহ্, বেশ সুন্দর কাজ করেছি দেখলাম। এমন ভুলও যে হতে পারে মাথায় ছিল না। এ ভুল হওয়ার পিছনে মূল কারন ছিল আমি Arduino কে Cable দিয়ে Laptop থেকে পাওয়ার দিচ্ছিলাম। আমার মাথায় কাজ করছিলো Arduino তো কানেক্টেড, পাওয়ার আছে। তাই Ground এর ব্যাপারটা মাথায় ছিলো…

Continue Readingএকটি ভুল, ১ঘন্টা সময় অতঃপর সমাধান

বিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-3)

হ্যালো বন্ধুরা, কেমন আছেন সবাই? আজ চলে এলাম ৩য় পর্ব নিয়ে। আজকের পর্বের রোবটটি হলো Heavy load নিয়ে কাজ করতে পারে এমন একটি রোবট। তো চলুন জেনে নিই এ রোবটটি নিয়ে। আসলে জাপান এত এত ধরনের রোবট তৈরী করে যে তাদের এই Industry নিয়েই কয়েক শত পৃষ্টার বই লেখা সম্ভব। কি নেই তাদের? Astronaut Robot থেকে শুরু করে Rescue Robot, Social Robot, Industrial Robot সবই আছে। কিন্তু আমাদের এই সিরিজের লক্ষ্য হল Most Advance Robot গুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ ৯টি Robot সম্পর্কে জানা। তাই আর সেই বই লেখার দিকে বরং না যাই। আপনাদের উৎসাহ পেলে হয়তোবা কোন দিন সেই বই লেখা শুরু করবো। Official Picture of HRP-5P Humanoid Robotics Project (HRP-5P) রোবটটি তৈরী করে জাপানের National Institute of Advance Industrial Science &Technology (AIST). HRP-5P রোবটটি তৈরী করার মূল উদ্দেশ্য ছিলো এমন পরিবেশে এ রোবটটি কাজ করতে পারবে যে পরিবেশ মানুষের পক্ষে কাজ করা বিপদজনক এবং অনেক ভারী কাজ। জাপানের মানুষদের মধ্যে জন্মহার দিন দিন কমে যাচ্ছে ও তার ফলে ভবিষ্যৎ এর Heavy Labor মার্কেট কর্মী সংকটে ভুগতে পারে বলে মনে করে AIST ও জাপানের Intelligent System Research Institute মিলে ঠিক করলো এমন একটি রোবট বানাবে যা ভারী কাজও করতে পারবে সেই সাথে বিপদজনক পরিবেশে তার কাছে হুমকি স্বরুপ মনে হবে না। তখন তারা HRP প্রোজেক্টের কাজ শুরু করলো।HRP-1 বাজারে আসে ১৯৯৭ সালে। তারপর থেকে তাদের ক্রমাগত চেষ্টা চলছিলো কিভাবে তারা HRP সিরিজের উন্নতি করতে পারে। যার সর্বশেষ সংযোজন ২০১৮ সালে HRP-5P। HRP সিরিজের HRP-2 ছিলো হাল্কা ওজনের Bipedal রোবট হাঁটতে পারে, শুয়ে যেতে পারে এমনকি অত্যন্ত চিকন রাস্তা দিয়েও যেতে পারে। HRP-3 ছিলো পিচ্ছিল রাস্তায় হেঁটে ভারী কাজ করতে পারে পারে এমন রোবট। HRP-4 ছিলো Unbalance place (উঁচু নিচু স্থান) এ কাজ…

Continue Readingবিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-3)

বিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-2)

বন্ধুরা, আজ চলে এসেছি ২য় পর্ব নিয়ে। আজ আমরা জানবো ''Boston Dynamics'' এর রোবট ''SPOT'' সম্পর্কে। SPOT For the price of a luxury car, you can now get a very smart, very capable, very yellow robotic dog - Evan Ackerman. ''Boston Dynamics'' মূলত বেশি পরিচিত ছিলো তাদের ''Big-dog'' রোবট কে দিয়ে যা US মিলিটারির জন্য তৈরী করেছিলো। এই কোম্পানির মূল লক্ষ্য ছিলো এমন রোবট তৈরী করা যা দেখে জীবন্ত মনে হবে, যা Heavy Load বহন করতে পারবে এবং যে রোবট মানুষকে অনুসরন করতে পারবে। তবে তাদের রোবট ছিলো মিলিটারির জন্য বিশেষভাবে তৈরী রোবট। MIT র সাবেক প্রফেসর Mark Robert ১৯৯২ সালে এই American কোম্পানি প্রতিষ্টা করে MIT এর Leg lab এ । বর্তমান সময় রোবটিক্স ইন্ডাস্ট্রির Rock-star মানা হয় এই কোম্পানিকে। গুগল বিশ্বে যতসব নতুন নতুন বিষয় আছে সবকিছু নিয়েই কাজ করতে চায়। ২০১০ এর পর থেকে গুগল রোবটিক্স শিল্পের বিপ্লব দেখে অনেক রোবট কোম্পানিকেই কিনে নেয়। সেই সুবাধে ২০১৩ সালে গুগল কিনে নেয় ''Boston Dynamics'' কে। কিন্তু যখন দেখলো তাদের পথ আর ''Boston Dynamics'' এর পথ আলাদা তখন তারা বিক্রি করে দেয় জাপানের Softbank কোম্পানির কাছে। (Fun Fact: Softbank এর প্রতিষ্টাতা কে জাপানের বিল গেটস বলা হয়) পথ আলাদা? ব্যাপারটা কি? চলুন জেনে নিই। Boston Dynamics এর এই কেনাবেচার সময়ে কিন্তু কোন কন্ট্রাক্টে US মিলিটারির জন্য বিশেষ ভাবে রোবট তৈরী করার ব্যাপারটা বাদ যায় নি। আর এ ব্যাপারটাই গুগল হিমশিম খেয়ে যাচ্ছিলো Boston Dynamics কে নিয়ে কেননা তাদের রোবটিক্স টিমের অন্যতম প্রধান Rubin গুগল ছেড়ে যায়। আর তখন এ ধাক্কা সামলাতে না পেরে Google X বিক্রি করে দেয় Softbank এর কাছে। Boston Dynamics ২০০৯ সালে ''Future of Robotics'' নামে প্রকল্পের কাজ শুরু করে। SPOT সর্বপ্রথম Publicly প্রদর্শন করা হয় ২০১৬…

Continue Readingবিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-2)

বিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-1)

হ্যালো বন্ধুরা। বর্তমান তথ্য প্রযুক্তির যুগে মানুষের কাজ সহজ করে দিতে পারে এমন একটি বিষয় হলো রোবট। সাধারণত রোবট বলতে বোঝানো হয় এমন এক ধরনের মেশিন যা দ্বারা এক বা একাধিক কাজ একসাথে সম্পন্ন করা যায় নিখুঁতভাবে এবং এটি Programmable। আমরা এই সিরিজের মাধ্যমে জানবো বিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট সম্পর্কে। যেসব রোবটগুলো Humanoid, Industrial & service রোবট যারা সমস্ত বিশ্ব পরিবর্তন করে দিচ্ছে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স(AI) এর মাধ্যমে। এদের কোন কোনটি পানিতে, কোনটি আকাশে, কোনটি আগুনে কাজ করতে দক্ষ। আমাদের সিরিজ ৯টি ভাগে বিভক্ত থাকবে। যার প্রতিটি ভাগে আলোচনা করা হবে এক একটি রোবট সম্পর্কে। আজ সিরিজের প্রথম পর্ব। রোবটগুলো হলঃ DIGIT SPOT HRP-5R PEPPERATLASSTUNTRONIC ROBOT AQ UANAUTSURENA(IV) HANDLE চলুন শুরু করা যাক প্রথম রোবট "DIGIT" কে নিয়ে।DIGIT সম্পর্কে জানতে হলে আমাদের প্রথমে জানতে হবে এর প্রতিষ্ঠাতা সম্পর্কে। Agility Robotics নামক একটি কোম্পানি প্রথম তাদের রোবট "ATRIAS" আনে 2015 সালে। Agility Robotics এর লক্ষ্য ছিল, তারা এমন কোন রোবট বানাবে যা মানুষ যে জায়গায় যেতে পারে ওই জায়গায় যেতে পারে এবং মানুষের সকল কাজ করতে পারে। Agility Robotics এর প্রথম রোবট ছিল "ATRIAS" এরপর তারা ২০১৫ সালে বাজারে আনে "CASSIE"। এবং তাদের সর্বশেষ আপডেট হল "DIGIT"। ATRIAS in ORANGE UNIVERSITY Lab. ATRIAS সম্পর্কে জানলে জানা হয়ে যাবে CASSIE সম্পর্কে আর CASSIE সম্পর্কে জানলে জানা হয়ে যাবে DIGIT সম্পর্কে। এই রোবট গুলো মূলত Update version যা Agility Robotics ধাপে ধাপে বাজারে এনেছে। Atrias বা Cassie কারোরই হাত ছিল না এরা মূলত পা দিয়ে এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় যেতে পারত সাধারণ মানুষেরা যেভাবে যায়। কিন্তু Digit এর পায়ের সাথে সাথে হাতও ছিল, যা একে দিয়েছিলো নতুন নতুন কাজ করার সুবিধা।Atrias ছিলো মূলত Orange University এর project. মজার ব্যাপার হলো আরো ২টি বিশ্ববিদ্যালয় যুক্ত…

Continue Readingবিশ্বের নয়টি এডভান্স রোবট (Part-1)