You are currently viewing গুগলের প্রতিদ্বন্দ্বী কিছু সার্চ ইঞ্জিন

গুগলের প্রতিদ্বন্দ্বী কিছু সার্চ ইঞ্জিন

গুগলের তৈরি সবকিছু শক্তিশালী বিল্ট-ইন নিরাপত্তা প্রযুক্তির দ্বারা সুরক্ষিত থাকে যা স্প্যাম, ম্যালওয়্যার, ভাইরাস ইত্যাদির ঝুঁকি শনাক্ত ও ব্লক করার মাধ্যমে আপনার কাছে সেগুলি পৌঁছাতে বাধা দেয়। গুগল এই নিরাপত্তা প্রযুক্তি তাদের পার্টনারদের সাথে শেয়ার করে ইন্ডাস্ট্রি স্ট্যান্ডার্ডের উন্নতি এবং অনলাইনে সকলকে সুরক্ষিত রাখতে সাহায্য করে।কিন্তু এরপরও অনেকসময় অনেকে গুগলে সিকিউর ফিল করে না,অনেকে নতুন কিছুর ফিচার/ছোঁয়া পেতে চায়।তাদের জন্য আছে গুগলের চির প্রতিদ্বন্দ্বী কিছু সার্চ ইঞ্জিন। তবে এই সার্চ ইঞ্জিনের ইউজার কিন্তু নিত্যন্তই কম নয় বরং দিনদিন তাদের পপুলারিটি ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে।

গুগল সার্চের প্রতিদ্বন্দ্বী :

১. বিং
২. বাইডু
৩. ডাকডাকগো

৪.গিফি

৫. ইয়ানডেক্স
৬. ইয়াহু

৭. ask.com

৮.AOL

৯.excite


বিং সার্চ ইঞ্জিন :

বিং মাইক্রোসফট এর একটি অংশ।
সার্চের ফলাফলে আরও বেশী নিদির্ষ্ট এবং গ্রহনযোগ্য উত্তরের জন্য বিং অনন্য। মাইক্রোসফটের অফিসিয়াল সার্চ ইঞ্জিন বিং প্রতিষ্ঠিত হয় ২০০৯ সালে ।
নিরাপত্তার ক্ষেত্রে গুগলের সাথে বেশি আলাদা নয় বিং। আপনি যদি শুধু মাত্র গুগল সার্চের কোন বিকল্প চান বা নিরাপত্তা জনিত কোন সমস্যা আপনার না থাকে। তাহলে এটি ব্যবহার করতে পারেন।

বিং এর স্লোগান হচ্ছে ‘বিং এন্ড ডিসাইড’- অর্থাৎ, বিং এ সার্চ করুন এবং সিদ্ধান নিন। কেননা, মাইক্রোসফট বিং’কে ‘ডিসিশন ইঞ্জিন’ বলেও পরিচিত করেছে যা ব্যবহারকারীকে কোনো ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করতে পারে।
বাইডু সার্চ ইঞ্জিন :

বাইডু একটি চীনা সার্চ ইঞ্জিন। বাইডু সার্চ ইঞ্জিন ২০০০ সালের দিকে তৈরি হয় এবং এটি বর্তমানে চীনের সবচেয়ে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন।
চীন ভিত্তিক জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন হলো বাইডু। গুগুলকে ব্যবহার না করে চীন তাদের নিজস্ব সার্চ ইঞ্জিন Baidu ব্যবহার করে। এর ওয়েব সাইট ঠিকানা হলো https://www.baidu.com/ তবে চীন ছাড়া আরো কয়েকটি দেশে কম বেশী বাইডু ব্যবহৃত হয়ে থাকে। বাইডু চীনের নীতিমালা অনুসারে পরিচালিত হয়ে থাকে।

ডাকডাকগো সার্চ ইঞ্জিন :

লক্ষ্য হচ্ছে ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তা বজায় রাখা। শুরু থেকেই টার্গেটেড অ্যাড এড়িয়ে চলছে ওয়েবসাইটটি। ব্যবহারকারীকে উদ্দেশ্য করে বিজ্ঞাপন দেখানোই টার্গেটেড অ্যাড হিসেবে পরিচিত। তবে প্রথম দুই সার্চ রেজাল্টের ক্ষেত্রে স্বল্প মাত্রায় তারা স্পন্সরড অ্যাড দেখিয়ে থাকে। গুগলের নজর এড়িয়ে চলতে চাইলে ব্যবহার করতে পারেন ডাকডাকগো।

গিফি সার্চ ইঞ্জিনঃ

গিফি ছোট অ্যানিমেশন, মুভি ক্লিপ বা খবরের ফুটেজ দিয়ে বানানো হয় জিআইএফ। প্রতিক্রিয়া বা আবেগ প্রকাশে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক জনপ্রিয় এটি। ফেইসবুকে বা টুইটারে জিআইএফ পাওয়া গেলেও তা খুব সীমিত। অসংখ্য জিআইএফ একত্রে পাওয়ার উপায় হলো গিফি নামের ওয়েবসাইটটিতে ঢুঁ মারা। কোনো একটা কি ওয়ার্ড লিখে সার্চ করলেই হাজার হাজার জিআইএফ চলে আসবে। যেমন হ্যাপি লিখে সার্চ দিলেই খুশি প্রকাশের নানা ধরনের জিআইএফ পাওয়া যাবে।গিফির আইওএস ও অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপের মাধ্যমে ফেইসবুক, টুইটার, স্ন্যাপচ্যাট ও ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করা যাবে জিআইএফগুলো।

ইয়ানডেক্স সার্চ ইঞ্জিন :

ইয়ানডেক্স একটি রাশিয়ান সার্চ ইঞ্জিন এবং এটিই রাশিয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন। এটি তৈরি হয় ১৯৯৭ সালে।
২০১০ সালের মে মাসে ভিন্নভাষী ব্যবহারকারীদের জন্য Yandex.com সাইট লঞ্চ করে রাশিয়ান এই টেক জায়ান্ট।
Yandex.ru রাশিয়ার চতুর্থ জনপ্রিয় ওয়েবসাইট। রাশিয়ায় গুগলের সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী ইয়ানডেক্স।
ইয়াহু সার্চ ইঞ্জিন :

এক সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন এখন তার খারাপ সময় পার করছে। সঠিক সিদ্ধান্তে কম সময়ে সবচেয়ে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন হয়ে উঠেও, কিছু ভূল পদক্ষেপ এর কারণে ইয়াহুকে আজ হিসেব চুকাতে হচ্ছে।
ইয়াহু একটি আমেরিকান সার্চ ইঞ্জিন। ১৯৯৫ সালের ১২ই মার্চ এটি লঞ্চ করা হয়।

বর্তমানে অ্যালেক্সা গ্লোবাল র্যাঙ্কিং এ ১২তম অবস্থানে রয়েছে ইয়াহু ডটকম।
সময় খারাপ হলেও এখনো অনেক ব্যবহারকারী ইয়াহু সার্চ ব্যবহার করেন।

Ask.com সার্চ ইঞ্জিনঃ

এই সার্চ ইঞ্জিনটি আগে “Ask Jeeves” নামে পরিচিত ছিল। এর অনুসন্ধান ফলাফলগুলি ওয়েব ফরম্যাট এর উত্তর দেওয়ার উপর ভিত্তি করে দেওয়া হয়। এটি ১৯৯৫ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এখানে আপনি আপনার প্রশ্নের উত্তর পেতে পারেন এবং এটি আপনার প্রশ্নের উত্তরে বড় পরিমাণ আর্কাইভ তথ্য একীভূত করে। যদি এই সার্চ ইঞ্জিনের কাছে প্রশ্নের উত্তর না থাকে তবে এটি তৃতীয় পক্ষের সার্চ ইঞ্জিন থেকে সহায়তা গ্রহণ করে।

AOL সার্চ ইঞ্জিনঃ

বিশ্বের শীর্ষ সার্চ ইঞ্জিনগুলির মধ্যে অন্যতম সার্চ ইঞ্জিন এটি। এর বাজার দর ০.০৫ শতাংশ। ভেরিজোন কমিউনিকেশন এওএলকে ৪.৪ বিলিয়ন ডলারে কিনেছে। এটি ১৯৮৩ সালে কন্ট্রোল ভিডিও কর্পোরেশন হিসাবে চালু করা হয়েছিল। আসলে AOL নিউইয়র্ক ভিত্তিক একটি বিশ্বব্যাপী গণমাধ্যম সংস্থা। এওওল বিজ্ঞাপন এবং এওএল প্ল্যাটফর্ম হিসাবে কোম্পানী বিজ্ঞাপন সেবাও প্রদান করে থাকে।

Excite সার্চ ইঞ্জিনঃ

অধিকাংশই “এক্সাইট” নামক একটি সার্চ ইঞ্জিন সম্পর্কে জানেন না। এক্সাইট একটি অনলাইন পরিষেবা পোর্টাল। এটি ইমেল, সার্চ ইঞ্জিন, খবর, তাত্ক্ষণিক বার্তা এবং আবহাওয়ার আপডেটগুলির মতো ইন্টারনেট সেবা সরবরাহ করে। এটি ১৯৯৫ সালে চালু করা হয়েছিল।বর্তমানে এটিও বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করছে।

Leave a Reply