You are currently viewing সাইবার জগতে আত্মরক্ষা-সাইবার সিকিউরিটি

সাইবার জগতে আত্মরক্ষা-সাইবার সিকিউরিটি

আমরা পুরোপুরি নেটওয়ার্ক বেষ্টিত একটি পরিবেশে বসবাস করি। ইন্টারনেট এক্সেস এখন সব কিছুতেই। এমনকি আমাদের স্মার্ট ডিভাইসটিও থাকে ইন্টারনেট জগতের সাথে সংযুক্ত। এখন যদি আপনার একান্ত ব্যক্তিগত তথ্য উপাত্ত অন্যের হাতে পৌঁছে যায় তার মানে আপনি এমন এক সমস্যার সম্মুখীন যেখান থেকে রেহাই পাওয়া ভার।এরজন্যই প্রয়োজন পূর্ববর্তী কিছু আত্নরক্ষার কৌশল অবলম্বন করে নিজেকে কিছুটা হলেও বিপদ থেকে দূরে রাখা।চলুন জেনে নেওয়া যাক সাইবার সিকিউরিটি সম্বন্ধে।

সাইবার সিকিউরিটি কি ? (What Is Cyber Security in Bangla)
সাইবার সিকিউরিটি (cybersecurity) মানে হলো এমন একটি প্রক্রিয়া, যেখানে বিভিন্ন আধুনিক প্রযুক্তির (technology) মাধ্যম, প্রক্রিয়া (process) এবং চর্চার ব্যবহার করে, computer device, data, network এবং program গুলিকে cyber attack, cybercrime এবং অবৈধ ব্যবহার থেকে সুরক্ষিত করে রাখা হয়।

সোজা ভাবে বললে, computer, device বা network গুলিকে cybercrime থেকে বাঁচিয়ে রাখার প্রক্রিয়াটিকেই বলা হয় সাইবার সিকিউরিটি।

Cybersecurity কে computer security এবং information technology security (IT Security) বলেও বলা যেতে পারে।

সাইবার সিকিউরিটির প্রক্রিয়ার ব্যবহার করে কম্পিউটার বা নেটওয়ার্ক গুলিতে এতো করা ভাবে সুরক্ষা দিয়ে রাখা হয় যে বাইরের সাইবার অপরাধীরা সেই সিস্টেম (system) বা নেটওয়ার্কে (network) সহজে প্রবেশ করতে পারেনা।

Cyber security র সেবা প্রদান করা অনেক ভালো ভালো কোম্পানি বা organization রয়েছে, যারা কিছু টাকা নিয়ে অন্যান্য কোম্পানি বা organization গুলির computer ও network গুলিকে নিরাপত্তা প্রদান করে যেকোনো ধরণের সাইবার ক্রাইম বা cyber attack থেকে।

তাহলে বুঝলেনতো, “সাইবার সিকিউরিটি মানে কি”?

নিজেকে সাইবার ক্রাইম থেকে কিভাবে বাঁচিয়ে রাখবেন ?
সাইবার ফ্রড (cyber fraud), যেকোনো ব্যাক্তির সাথেই হতে পারে।

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে, আমার এবং আপনার মতো সাধারণ জনসাধারণের সাথে অনেক রকমের online fraud বা scamming করার চেষ্টা করা হয়।

Tips to protect yourself from cybercrime
নিজের কম্পিউটার ডিভাইস এবং নেটওয়ার্ক গুলিকে সাইবার ক্রাইম থেকে সম্পূর্ণ ভাবে সুরক্ষতি করে রাখার তেমন কোনো শক্ত এবং দ্রুত নিয়ম (hard & fast rules) থাকতে পারেনা।

তবে হে, নিচে দেয়া টিপস বা পরামর্শ গুলি মেনে চললে, আপনি আপনার কম্পিউটার ডিভাইস ও নেটওয়ার্ক গুলিকে যুক্তিসঙ্গতভাবে নিরাপদ করে রাখতে পারবেন।

১. নিজের কম্পিউটার ও মোবাইলে কেবল genuine বা original software এবং application ইনস্টল করবেন।
২.ইন্টারনেটে কোনো ধরণের অবিস্বস্ত ওয়েবসাইট থেকে কোনো রকমের ফাইল ডাউনলোড করবেননা।
৩.যদি আপনি একটি android mobile ব্যবহার করছেন, তাহলে কেবল Google play store থেকেই apps download করবেন।
অবিস্বস্ত ওয়েবসাইট, apps এবং social profile গুলিতে নিজের mobile number এবং কোনো ধরণের তথ্য দিবেননা।
৪.আপনার ইমেইল একাউন্টে আশা যেকোনো রকমের পুরস্কার, উপহার বা লটারির ইমেইল গুলিকে সাথে সাথে ডিলিট করে দিবেন। এই ধরণের ইমেইল আপনাকে লোভ দেখিয়ে ঠকানোর জন্য পাঠানো হয়।
৫.অপ্রয়োজনীয় এবং অবিস্বস্ত application মোবাইলে ইনস্টল করবেননা। অনেক অবিস্বস্ত apps রয়েছে যেগুলি আপনার মোবাইলের file manager, camera, sms inbox, location এবং আরো অন্যান্য তথ্য আপনার অনুমতি ছাড়া গ্রহণ করতে পারে।
৬.নিজের মোবাইল বা কম্পিউটার অন্য ব্যাক্তিকে ব্যবহার করতে দিলে, আপনি অবশই চোখ রাখবেন। অনেক বেশি সময়ের জন্য আপনার device কাওকে ব্যবহার করতে দিবেননা।
৭.আমরা যখন ঘরের বাইরে থাকি, তখন যেকোনো জায়গায় open wifi connection পেয়েগেলে অনেক খুশি হয়ে যাই। কিন্তু সাবধান, এই ধরণের password ছাড়া wifi connection বেশিরভাগ ক্ষেত্রে হ্যাকিং (hacking) এর উদ্দেশ্যে open রাখা হয়। আপনি সেই open wifi নেটওয়ার্কে connect করার সাথে সাথে আপনার ডিভাইস হ্যাক হয়ে যেতে পারে।
৮.যেকোনো computer cafe, office computer বা public কম্পিউটার থেকে online banking বা banking transactions করবেননা।
নিজের মোবাইল বা কম্পিউটার থেকে banking transaction করার পর, online banking passwords বা debit card details কখনো সেভ (save) করে রাখবেননা।
৯.নিজের পুরোনো কম্পিউটার বা মোবাইল বিক্রি করার আগে অবশই সম্পূর্ণ ডিভাইস ফরম্যাট (format) করে নিবেন। এতে, আপনার ব্যক্তিগত সব ধরণের তথ্য ডিলিট হয়ে যাবে।
১০.মোবাইলে ডাউনলোড করা প্রায় ৯০% এপস আপনার gallery বা file manager এ প্রবেশ করার অনুমতি চায়। এবং, আমরা সকলে কিছু না ভেবেই সেই এপস গুলিকে অনুমতি দিয়ে দেই। তাই, নিজের মোবাইলে কোনো রকমের ব্যক্তিগত ছবি (personal pictures) রাখবেননা।
নিজের কম্পিউটার এবং wifi connection গুলিতে পাসওয়ার্ড অবশই দিয়ে রাখবেন।
১১.ব্যক্তিগত ফাইল এবং ছবি গুলিকে একটি external hard drive এ রাখার চেষ্টা করুন। এবং external hard drive পাসওয়ার্ড দিয়ে লক করে রাখুন।
নিজের কম্পিউটারে অরিজিনাল OS (operating system) তাদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করে ব্যবহার করবেন।
১২.নিজের social media account password, email account password এবং online banking password সময়ে সময়ে পরিবর্তন করতে থাকবেন।
১৩.কম্পিউটার এবং মোবাইলে একটি ভালো antivirus এবং internet protector সফ্টওয়ার অবশই ব্যবহার করবেন।

Leave a Reply