You are currently viewing শুরু হতে যাচ্ছে ৩য় বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াড

শুরু হতে যাচ্ছে ৩য় বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াড

  • Post author:

আগামী ৯ অক্টোবর থেকে শুরু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াডের এবারের আসর। চলমান করোনা পরিস্থিতির কারণে ২০২০ সালের বিডিআরও অনলাইনে অনুষ্ঠিত হবে। 
বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াড প্রতিযোগিতায় আংশগ্রহণকারীদের বয়সসীমা ৭ থেকে ১৮ বছর। ৭ থেকে ১২ বছর বয়সী ছেলে-মেয়েরা জুনিয়র গ্রুপ এবং ১৩ থেকে ১৮ বছরের অংশগ্রহণকারীরা চ্যালেঞ্জ গ্রুপ – এই দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। একজন প্রতিযোগী সর্বোচ্চ ৩টি প্রতিযোগিতায় একক বা দলীয়ভাবে (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) অংশগ্রহণ করতে পারে।

বিডিআরও ২০২০ এ নিম্নলিখিত প্রতিযোগিতাগুলো অনুষ্ঠিত হবেঃ
১। ক্রিয়েটিভ ক্যাটাগরি
২। রোবট ইন মুভি
৩। রোবট গ্যাদারিং
৪। রোবটিক বুদ্ধি (কুইজ প্রতিযোগিতা)

এর মধ্যে শুধুমাত্র কুইজ প্রতিযোগিতাটি বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াডের জন্য আয়োজিত হবে এবং অন্য তিনটি প্রতিযোগিতা আন্তর্জাতিক রোবট অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে আয়োজিত হবে।

প্রতিটি প্রতিযোগিতায় জুনিয়র এবং চ্যালেঞ্জ (সিনিয়র) – এই দুইটি ক্যাটাগরিতে অনুষ্ঠিত হবে। যাদের জন্ম ২০০২ ২০০৭ এর মধ্যে তারা চ্যালেঞ্জ (সিনিয়র) ক্যাটাগরি তে এবং যাদের জন্ম ২০০৮-২০১৩ এর মধ্যে, তারা জুনিয়র ক্যাটাগরি তে প্রতিযোগিতা করতে পারবে।

ক্রিয়েটিভ ক্যাটাগরি

প্রতিযোগিতা পরিচিতি

এই প্রতিযোগিতায় মূলত একটি থিম (Theme) বা বিষয়ের উপর নির্ভর করে প্রতিযোগীকে একক বা দলগতভাবে (১-৩ জন মিলে) একটি রোবট বানাতে হয়। অন্যান্য প্রতিযোগিতার সাথে এ প্রতিযোগিতার মূল পার্থক্য হচ্ছে এখানে প্রতিযোগীদের রোবটটি প্রতিযোগিতার স্থানে বসে বানাতে হয়।
এবছর যেহেতু বিডিআরও অনলাইনে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, সেহেতু নিয়মকানুনে কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। একটি গ্রুপের সকল অংশগ্রহণকারী “জুম” ভিডিও মিটিং এর মাধ্যমে প্রতিযোগিতায় অংশ নিবে। রোবট তৈরির জন্য সময় দেওয়া হবে সাত ঘন্টা।

রোবটের ধরণ

ক) রোবটটি যেকোনো হার্ডওয়্যার, সেন্সর, মোটর ইত্যাদি দিয়ে তৈরি করা যাবে
খ) রোবটটি ম্যানুয়ালি নিয়ন্ত্রণ করা যাবে না। এটিকে স্বয়ংক্রিয় হতে হবে।
গ) রোবটটি অবশ্যই ব্যাটারিচালিত হতে হয়, যেকোনো ব্যাটারি ব্যবহার করা যাবে।
ঘ) প্রতিযোগীরা প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার কোডিং, প্রপস, ব্যাকগ্রাউন্ড এগুলো আগে থেকে তৈরি করে রাখতে পারে।
ঙ) রোবটের সাইজ নির্দিষ্ট করা নেই। তবে ফিল্ডে চালানোর জন্য প্রয়োজনীয় যা কিছু লাগবে শিক্ষার্থী নিজে ব্যবস্থা করবে।
চ) প্রতিযোগিতার শুরুতে পুরো রোবটটির সকল পার্ট সম্পূর্ণ খোলা (disassembled) অবস্থায় থাকতে হবে। তারপর প্রদত্ত নির্ধারিত সময়ের মধ্যে (৭ ঘণ্টা) পুরো রোবটটি বানাতে হবে।

রোবটের থিম

২০২০ সালের রোবট অলিম্পিয়াডের জন্য নির্ধারিত থিম হচ্ছে “Robot: The Future Transportation”

রোবটের ভিডিও সাবমিশন

ক) প্রত্যেকটি দলকে একটি  ভিডিও জমা দিতে হবে।
খ)  ভিডিওটি প্রতিযোগিতাস্থলে বসে বানাতে হবে এবং ভিডিওতে রোবটের যে কার্যকারিতা ও ফিচার দেখানো হবে, পরবর্তীতে বিচারকদের সামনে প্রেজেন্টেশনের সময় একই ফিচার বর্ণনা করতে হবে- অতিরিক্ত কিছু উল্লেখ করা যাবেনা।
হবে।
গ) ৭  ঘণ্টা প্রতিযোগিতা শেষ হবার পূর্বেই অবশ্যই ভিডিওটি জমা দিতে হবে নির্ধারিত গুগল ফর্মে। 

লিখিত  পরীক্ষা

ক) প্রত্যেক দলকে কাগজে-কলমে একটি সমস্যা সমাধানের জন্য রোবটের ডিজাইন করতে হয় এবং এর ফিচার সম্পর্কে লিখতে হয়।
খ) এ রোবটের সাথে তারা যে রোবট তৈরি করছে তার কোন সম্পর্ক নেই এবং এর থীমও পূর্ব নির্ধারিত নয়। প্রতিযোগীরা যে নিজেরাই রোবটের ডিজাইন করতে সক্ষম তা যাচাই করতেই মূলত এ পরীক্ষাটি নেয়া হয়।
গ) রোবট বানানোর জন্য মোট যে ৭ ঘণ্টা সময় দেয়া হয় সেই সময়ের প্রথম ৩ ঘন্টার মধ্যেই লিখিত পরীক্ষার কাজ সম্পন্ন করতে হবে এবং গুগল ফর্মের মাধ্যমে সাবমিট করে দিতে হবে।
ঘ) লিখিত পরীক্ষার উত্তর কাগজে হাতে লেখা যাবে অথবা ডিভাইসে টাইপ করেও লেখা যাবে।

রোবটের প্রোডাকশন প্ল্যান

ক) প্রতিযোগিতাস্থলে বসে বানানো নিজের রোবটের একটি প্রোডাকশন প্ল্যান জমা দিতে হবে।
খ) প্রোডাকশন প্ল্যানে যা যা থাকবে –
১। প্রজেক্টটি তৈরির উদ্দেশ্য
২। রোবটের কোয়ালিটি, সার্কিট এবং ফাংশনের ডেমোনেস্ট্রেশন
৩। রোবট তৈরির খরচ
৪। রোবট তৈরির জন্য কাদের সাহায্য পেয়েছ

গ) রোবটের ফিচার লেখার ক্ষেত্রে অবশ্যই প্রতিযোগিতার সময় যতটুকু রোবটের ফিচার দৃশ্যমান সেটুকুই লিখতে হবে। প্রতিযোগিতার সময় বানানো যায় নি এমন কোন ফিচার উল্লেখ করা যাবে না।
গ) রোবট বানানোর জন্য মোট যে ৭ ঘণ্টা সময় দেয়া হয় সেই সময়ের মধ্যেই লিখিত পরীক্ষার কাজ সম্পন্ন করতে হবে এবং নির্ধারিত গুগল ফর্মের মাধ্যমে সাবমিট করে দিতে হবে।
ঙ) প্রোডাকশন প্ল্যান কাগজে হাতে লিখে ছবি তুলে বা স্ক্যান করে অথবা ডিভাইসে টাইপ করেও লেখা যাবে।

রোবট ইন মুভি

প্রতিযোগিতা পরিচিতি

এটি একটি দলগত প্রতিযোগিতা। প্রতিটি দলে এক থেকে দুইজন সদস্য থাকতে পারে। এই প্রতিযোগিতায় নির্ধারিত থীম এবং সাবথীমের উপর একটি এক মিনিটের মুভি বানাতে হয়। মুভিতে একটি কার্যক্ষম ব্যাটারিচালিত রোবট থাকতে হয় – রোবটটি অবশ্যই থিমের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ হতে হবে। প্রতিযোগিতাস্থলে বসে সিনেমার গল্প তৈরি করে শ্যুট করা এবং অডিও ও ভিডিও এডিটিং করে একটা পরিপূর্ণ এক মিনিটের মুভি ও মুভি বিষয়ক ১ মিনিটের কমেন্টারি তৈরি করতে হয়। নির্দিষ্ট ফাইল সাইজ, রেজুলেশন, ফরম্যাট ইত্যাদি নিয়ম অনুসরণ করে ফাইল জমা দেয় প্রতিযোগীরা।
এবছর যেহেতু বিডিআরও অনলাইনে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, সেহেতু নিয়মকানুনে কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। একটি গ্রুপের সকল অংশগ্রহণকারী “জুম” ভিডিও মিটিং এর মাধ্যমে প্রতিযোগিতায় অংশ নিবে। মোট সময় দেওয়া হবে সাত ঘন্টা।

রোবটের ধরণ

ক) রোবটটি যেকোনো হার্ডওয়্যার, সেন্সর, মোটর ইত্যাদি দিয়ে তৈরি করা যাবে
খ) রোবটটি অবশ্যই ব্যাটারিচালিত হতে হয়, যেকোনো ধরণের ব্যাটারি ব্যবহার করা যাবে।
গ) প্রতিযোগীরা প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার কোডিং, প্রপস, ব্যাকগ্রাউন্ড এগুলো আগে থেকে তৈরি করে রাখতে পারে।
ঘ) রোবটের সাইজ নির্দিষ্ট করা নেই।কিন্তু ৯০ সেমি X ৬০ সেমি সাইজের সেটের মধ্যে পুরো মুভিটি শুট করতে হবে। ফিল্ডে চালানোর জন্য প্রয়োজনীয় যা কিছু লাগবে শিক্ষার্থী নিজে ব্যবস্থা করবে।
ঙ) রোবট আগে থেকে বানিয়ে রাখা যাবে। উল্লেখ্য, সিনেমাতে রোবটের পারফর্ম করার দৃশ্য থাকা বাধ্যতামূলক। যেমন- সিনেমাতে যদি বলা হয় রোবট হাটতে পারে, তাহলে হাঁটিয়ে দেখাতে হবে, যদি বলা হয় রোবটটি উড়তে পারে তাহলে তাকে উড়িয়ে দেখাতে হবে ইত্যাদি।

রোবটের থিম

২০২০ সালের রোবট অলিম্পিয়াডের জন্য নির্ধারিত থিম হচ্ছে “Robot: The Future Transportation”
এর পাশাপাশি প্রতিযোগিতার দিন সকালে একটি সাবথিম (Subtheme) দেয়া হতে পারে। সাবথিম মুলথিমের সাথেই সামঞ্জস্যপূর্ণ (compatible) থাকবে। রোবট ইন মুভি ক্যাটাগরিতে অংশ নিতে হলে ব্যবহার করা রোবট, মুভির গল্প ইত্যাদি অবশ্যই মেইন থিমের ও সাবথিমের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ (compatible) রাখতে হবে।

রোবটের সেট ও উপকরণ

ক) প্রত্যেক দলের সিনেমা অবশ্যই প্রতিযোগিতার সময় বসে নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে (৭ ঘণ্টা) বানাতে হবে।

খ) সিনেমায় প্রয়োজন হলে ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক ব্যাবহার করা যাবে, কিন্তু সেই মিউজিকের মূল উৎস (source link) প্রোডাকশন প্ল্যানে উল্লেখ করতে হবে। সিনেমাতে প্রয়োজন হলে শুট করা ভিডিওর পাশাপাশি ভিন্ন জায়গা থেকে নেয়া ছবি ও ভিডিও (external image & video) যুক্ত করা যাবে।
গ) শুধু মাত্র ছবি তুলে স্লাইডশো করে কোন সিনেমা তৈরি করা যাবে না।

রোবটের  প্রোডাকশন প্ল্যান সাবমিশন 

ক) প্রত্যেক দলকে প্রতিযোগিতা চলাকালীন সময়ের মধ্যে প্রোডাকশন প্ল্যান নির্ধারিত গুগল ফর্মের মাধ্যমে জমা দিতে হবে।
খ) প্রোডাকশন প্ল্যানে নিম্নলিখিত বিষয়গুলো উল্লেখ করতে হবে :
১। সিনেমার গল্প
২। কোন ক্যামেরায় ধারণ করা হয়েছে
৩। কোন সফটওয়্যার ব্যবহার করে এডিটিং করা হয়েছে
৪। যদি কোন ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক ব্যবহার করা হয় তাহলে সেটি কোন ওয়েবসাইট থেকে নেয়া হয়েছে
গ) প্রোডাকশন প্ল্যান কাগজে হাতে লিখে এরপর ছবি তুলে বা স্ক্যান করে অথবা ডিভাইসে টাইপ করে দেওয়া যাবে। তবে ডিভাইসে টাইপ করার ক্ষেত্রে টাইপ করবার সময় অবশ্যই কম্পিউটারের সম্পূর্ণ স্ক্রিন শেয়ার অন রাখতে  হবে।
৬। প্রতিযোগিতার সময় যাবতীয় কাজ  
ক) যাবতীয় কাজ করার জন্য মোট ৭ ঘণ্টা সময় পাওয়া যাবে।

খ) সিনেমাটির দৈর্ঘ্য ৩০ সেকেন্ড থেকে এক মিনিট এর মধ্যে হবে।

গ) সেই সাথে দলের সদস্যদের এক মিনিটে সিনেমা সম্পর্কে (movie comentary) বলতে হয়। সেটিও প্রতিযোগিতার সময় বসে ভিডিও করতে হবে।

ঘ)  এই ৭ ঘণ্টার মধ্যেই প্রতিযোগিতা স্থলে বসেই প্রোডাকশন প্ল্যানও লিখে ফেলতে হবে।

ঙ) প্রতিযোগিতা চলাকালীন সময়ের মধ্যেই প্রত্যেক দলকে গুগল ফর্মের মাধ্যমে প্রোডাকশন প্ল্যান এবং সিনেমাটি জমা দিতে হবে।

চ) ভিডিও ফাইলটি নিম্নলিখিত নিয়ম মেনে তৈরি করতে হবেঃ
১। সিনেমার দৈর্ঘ্যঃ ১ মিনিট (৩০ সেকেন্ড থেকে ৬০ সেকেন্ড গ্রহণযোগ্য। তবে কোনভাবেই তার বেশি বা কম নয়)। সিনেমার পাশাপাশি ৩০ থেকে ৬০ সেকেন্ডের একটি সেল্ফ ইন্টার্ভিউ থাকবে মুভিটির ব্যাপারে।
২। ফাইল সাইজঃ সর্বোচ্চ ২০০ মেগাবাইট
৩। রেজ্যুলেশনঃ অবশ্যই ১২৮০X৭২০ পিক্সেল (pixel)  বা এর চেয়ে বেশি হতে হবে
৪। ফাইল ফরম্যাটঃ WMV, AVI, MP4 অথবা MOV

রোবট গেদারিং

প্রতিযোগিতা পরিচিতি

এটি একটি একক প্রতিযোগিতা। এ প্রতিযোগিতায় একটি ব্যাটারী চালিত রোবট তৈরি করতে হয়ে যেটি সাদা মেঝের উপর কালো লাইন অনুসরন করে চলে এবং চলার পথে কিউব আকৃতির অবজেক্ট সংগ্রহ করে নির্দিষ্ট পথ অনুসরণ করে এসে নির্দিষ্ট স্থানে রাখে। অর্থাৎ একটি লাইন ফলোয়ার রোবট তৈরি করতে হয় যেটি তার কৃত্রিম হাতের সাহায্যে নির্দিষ্ট জায়গা থেকে কিউব আকৃতির অবজেক্ট সংগ্রহ করে আর একটি নির্দিষ্ট জায়গায় রাখতে পারে। যে প্রতিযোগী সম্পূর্ণ কাজটি দ্রুততম সময়ে নির্ভুলভাবে সম্পন্ন করতে পারে, সেই বিজয়ী হয়।

লাইন ফলোয়ার রোবটটি প্রতিযোগিতার স্থানে বসে বানাতে হয় তবে রোবটের কন্ট্রোলার অংশটি আগেই তৈরি করে রাখা যেতে পারে। মনে রাখতে হবে রোবটটিকে কেউ রিমোটের মাধ্যমে কন্ট্রোল করতে পারবে না। সেটি নিজেই নিজেই সব কাজ করবে।

উল্লেখ্য, এবছর অনলাইন প্রতিযোগিতা হবে বিধায় লাইন ফলোয়ার রোবট চালানোর জন্য ট্র‍্যাক এবং অবজেক্ট প্রতিযোগীকে আগেই কুরিয়ারের মাধ্যমে সরবরাহ করা হবে।

রোবটের ধরণ

ক) রোবটটি যেকোনো হার্ডওয়্যার, সেন্সর, মোটর ইত্যাদি দিয়ে তৈরি করা যাবে
খ) রোবটটি ম্যানুয়ালি নিয়ন্ত্রণ করা যাবে না। এটিকে স্বয়ংক্রিয় হতে হবে।
গ) রোবটটি অবশ্যই ব্যাটারিচালিত হতে হয়, যেকোনো ব্যাটারি ব্যবহার করা যাবে।
ঘ) চাকা এবং অবজেক্ট ধরার বাহুযুক্ত ব্যাটারিচালিত রোবট বানাতে হবে।
ঙ) রোবটটি প্রতিযোগিতার সময় বসে বানাতে হবে।

চ) রোবট তৈরির সকল উপকরণ প্রতিযোগীদের নিজেদের যোগাড় করতে হবে। আয়োজকরা কোন প্রকার উপকরণ সরবরাহ করবেন না।

ছ) রোবটের সর্বোচ্চ আকার ২৪ সেমি x ২২ সেমি (দৈর্ঘ্য এবং প্রস্থ)। রোবটের এই সাইজটি শুধুমাত্র বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াডের জন্য প্রযোজ্য। রোবটের আকার যদি নির্ধারিত সাইজের বড় হয় তাহলে প্রতিযোগিতার জন্য নির্ধারিত জায়গায় বসে  সেটিকে মডিফাই করে নির্ধারিত মাপের মধ্যে নিয়ে আসতে হবে। একজন প্রতিযোগী সর্বোচ্চ একবার নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে রোবটের সাইজ পরিবর্তন করার জন্য সুযোগ পাবেন।

                            রোবটের সর্বোচ্চ সাইজ

প্রতিযোগিতার ট্র্যাক ও অবজেক্ট 

ক) রোবটটি  সাদা মেঝের উপর কালো লাইন অনুসরন করে চলবে।

খ) কালো লাইনগুলো হবে  শুধুমাত্র  সরলরেখার  মতো  এবং রেখাগুলোর মধ্যে শুধুমাত্র ৯০° কোণ থাকবে। একটি ডেমো  ট্র্যাকের ছবি নিচে দেখানো হলো।

গ) ট্র্যাকের লাইনের প্রস্থ হবে ৩ সেন্টিমিটার

ডেমো ট্র্যাক

ঘ) ফাইনাল প্রতিযোগিতার ট্র্যাক হুবহু এরকম না হলেও এ ধরণের হবে।

ঙ) ট্র্যাকের মধ্যে যে কোন রঙের সর্বোচ্চ তিনটি ঘনাকৃতির বড় ও ছোট অবজেক্ট থাকবে। বড় অবজেক্টের আকার ৬ সেমি x ৬ সেমি x ৬ সেমি (±১৫%) এবং ছোট অবজেক্টের আকার ৩ সেমি x ৩ সেমি x ৩ সেমি (±১৫%)।

চ)  লাইনের বিভিন্ন সংযোগস্থলে একটি নম্বর দিয়ে চিহ্নায়িত করা থাকবে ডেমো ট্র্যাকের মত।

ছ) ট্র্যাকের এক কোণায় একটি রোবট সাইজ চেকবক্স থাকবে। সেখানে রোবটটিকে রেখে দেখিয়ে নিতে হবে রোবটের সাইজ সীমা অতিক্রম করে নি।,

জ) বিডিআরও পর্যবেক্ষক দল প্রতিযোগিতার সময় তাৎক্ষনিক জানাবেন কত নম্বর অবস্থানে অবজেক্ট বসাতে হবে, রোবট কোন নম্বর অবস্থান থেকে যাত্রা শুরু করবে এবং অবজেক্ট ধরার পর আবার কত নম্বর অবস্থানে ফেলতে হবে। একটি অবজেক্টকে ধরা অবস্থায় রোবটটি কোনভাবেই অন্য আর একটি অবজেক্টকে স্পর্শ করতে পারবে না। 

ঝ) এরকম সর্বোচ্চ চারটি টাস্ক দেয়া হবে তাৎক্ষনিকভাবে এবং সেই অনুযায়ী প্রতিযোগীরা কাজ সম্পন্ন করবেন।

ফিল্ডে রান করা ও  বিচারকাজ

ক) প্রতিযোগীরা তাদের জন্য নির্ধারিত ট্র্যাকে যতবার খুশি ট্রায়াল দিতে পারবে।
খ) প্রতিযোগীরা রোবট তৈরি, ট্রায়াল রান এবং বিচারকদের সামনে উপস্থাপন সহ মোট ৫ ঘণ্টা সময় পাবে।
গ) ফাইনাল রানের সময় নিম্নোক্ত বিষয়গুলোর উপর প্রতিযোগীদের নম্বর প্রদান করা হবেঃ
১। প্রতিযোগীরা কতগুলো অবজেক্ট সংগ্রহ করে নির্দিষ্ট জায়াগায় রাখলো।
২। সবগুলো কাজ সফলভাবে শেষ করতে মোট কত সময় লাগলো।
৩। রোবটটি কতবার রিস্টার্ট করতে হলো ।
৪। রোবটটি কতবার লাইনচ্যুত হলো।

রোবটিক্স কুইজ


এটি একক প্রতিযোগিতা যা শুধু বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াডে অনুষ্ঠিত হবে। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এ প্রতিযোগিতাটি নেই। এতে রোবটিক্স বিষয়ে সাধারণ জ্ঞান এবং গাণিতিক সমস্যা সংক্রান্ত ৪০ মিনিটের একটি লিখিত কুইজ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। উক্ত পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে বিজয়ী নির্বাচিত হবে।

বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

Leave a Reply